পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে কিছু পরামর্শ

স্মার্ট ফোনের অনেক ফিচার ও ব্যবহার ফোনের পাওয়ারের উপর অর্থাৎ ব্যাটারিতে বেশি চাপ পড়ে। তাতে খুব দ্রুতই ফোনের চার্জ শেষ হয়ে যায়। এই সমস্যা সমাধানে তাৎক্ষনাথ চার্জের জন্য অনেকে বেছে নেন পাওয়ার ব্যাংক। বাজারে পাওয়ার ব্যাংকের চাহিদা থাকায় কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী নকল ও নিম্নমানের পাওয়ার ব্যাংক বিক্রি করে ক্রেতাদের ধোকা দেওয়ার খবর পাওয়া যায়। সেজন্য একটি ভালো মানের কার্যকারি পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে যে বিষয়গুলো ক্রেতা হিসেবে আপনার জানাটা দরকার মনে হচ্ছে।

পছন্দসই মডেলের পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে যে পরামর্শগুলো আপনি মেনে দেখতে পারেন-

• যে কোম্পানির কিংবা মডেলেরই পাওয়ার ব্যাংক কিনুন, তাতে একসঙ্গে অন্তত দু’টি বা তার বেশি স্মার্টফোন চার্জ দেওয়ার সুযোগ রয়েছে কি না দেখে নিন। পাশাপাশি এটাও দেখা জরুরি যে, পাওয়ার ব্যাংকটিতে ব্যাটারির ‘স্টেটাস ইন্ডিকেটর’ রয়েছে কি না। এই ধরনের ইন্ডিকেটর থাকলে, পকেটের পাওয়ার ব্যাংক ব্যাটারির চার্জ কতটা রয়েছে, সেটা সহজে দেখে নিতে পারবেন এবং সেই অনুসারে ব্যবহার করতে পারবেন।

• কিছু বিশেষ কোম্পানির পাওয়ার ব্যাংক রয়েছে, যেগুলি আকারে বেশ বড়। আকার বড় বলেই, আপনি বেশি পাওয়ার ব্যাকআপ পাবেন— এমনটা ভেবে নিলে ভুল করবেন। বরং পাওয়ার ব্যাকআপের বিষয়টা পুরোপুরি নির্ভর করে ভিতরে থাকা ব্যাটারির গুণগত মানের উপরে। তাই এমন পাওয়ার ব্যাংক কিনুন, যেটি আপনি সহজে পকেটে ঢুকিয়ে নিতে পারবেন।

• পাওয়ার ব্যাংক কিনুন প্রয়োজন অনুসারে। সারা দিনে একটি না একাধিক স্মার্টফোন চার্জ করবেন এবং কতবার চার্জ করবেন— সেই অনুসারে পাওয়ার ব্যাংক পছন্দ করুন। দরকার হলে বেশি পাওয়ার ক্যাপাসিটির ব্যাংক কেনা যেতেই পারে, কিন্তু সেটিকে ফুল চার্জ দিতে সময় লাগবে। তবে ক্যাপাসিটি বেশি হলে বেড়াতে যাওয়ার সময়ে কাজে লাগে বেশি। পাওয়ার ব্যাংক একবার ফুল চার্জ দিয়ে নিলে একাধিক ফোনে একাধিক বার চার্জ দেওয়া যায়।

• চেষ্টা করুন, ফাস্ট চার্জিংয়ের সুবিধে রয়েছে এমন পাওয়ার ব্যাংক কেনার। তবে এ ক্ষেত্রে হয়তো টাকা একটু বেশি লাগতে পারে, তবে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ হিসেবে সেটি লাভজনক।

• অনেকেরই অভ্যেস রয়েছে, স্মার্টফোন হোক কিংবা পাওয়ার ব্যাংক, হাতের কাছে যে কেবল মেলে, সেটি সংযোগ করেই চার্জিংয়ে বসিয়ে দেওয়ার। এ ক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার, কোন ধরনের কেবল দিয়ে আপনি চার্জ করছেন, সেটার উপরেও আপনার ইলেকট্রনিক গ্যাজেটটি চার্জ হতে কত সময় নেবে, তা নির্ভর করে। তাই পাওয়ার ব্যাংক কেনার সময়, যে চার্জিং কেবলটি কোম্পানি থেকে দেওয়া হয়েছে, সেটি দিয়েই পাওয়ার ব্যাংক চার্জ করুন। এতে দ্রুত ফুল-চার্জ করতে পারবেন।

• স্থানীয় কোনও কোম্পানির কিংবা কম দামের প্রলোভনে পাওয়ার ব্যাংক না কেনাই ভাল। চেষ্টা করুন, কোনও নামী ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক কেনার।

• যে পাওয়ার ব্যাংকটি কিনছেন, সেটিতে লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি রয়েছে কি না দেখে নিন।

শেয়ার / প্রিন্ট করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *