হলি আর্টিসান হামলায় নিহতের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন ডিএমপি কমিশনার

শেয়ার / প্রিন্ট করুনঃ

আজ ১ জুলাই গুলশানে হলি আর্টিসান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলার  চার বছর পূর্তিতে নিহত দেশী-বিদেশীদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার)।

বুধবার সকাল ১০ টায় ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে গুলশানের ৭৯ নম্বর রোডের এ রেস্তোরাঁয় নিহতদের ফুলেল শ্রদ্ধা জানান তিনি। এছাড়াও ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বিপিএম, পিপিএম ও বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন।

২০১৬ সালের ১লা জুলাই আজকের এই দিনে গুলশানে হলি আর্টিসান বেকারীতে সন্ত্রাসীরা ভয়াবহ হামলা চালায়। এতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ দেশী-বিদেশী ২২ জন নিরীহ নাগরিক নিহত হন। এই সন্ত্রাসী হামলা প্রতিহত করতে গিয়ে অকালে আত্মত্যাগ করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দুই নির্ভীক কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ রবিউল করিম ও বনানী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সালাহ উদ্দিন খান।

তাঁদের স্মরণে ও হলি আর্টিসান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলায় পুলিশের আত্মত্যাগকে স্মরণ করতে পুরাতন গুলশান থানার সামনে ২০১৮ সালের ১ জুলাই ‘দীপ্ত শপথ’নামে একটি ভাস্কর্য উদ্বোধন করেছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার। দীপ্ত শপথেও ফুলেল শ্রদ্ধা জানান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, ডিজি র‌্যাব, বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন, ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি এন্ড প্রটেকশন বিভাগ ও গুলশান থানা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশে সন্ত্রাসী হামলার সর্ববৃহৎ এ ঘটনাটি ঘটে গত বছরের ১ জুলাই। সেদিন ছিল শুক্রবার। রাত পৌনে ৯টার দিকে রাজধানীর গুলশানের ৭৯ নম্বর রোডের হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় পাঁচজনের একটি সন্ত্রাসী দল উপস্থিত সাধারণ মানুষের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। সেদিন হলি আর্টিসান বেকারির ভেতরে হামলাকারীদের নৃশংসতার বলি হয় দেশী-বিদেশী মোট ২০ জন নাগরিক। এদের প্রত্যেককেই কুপিয়ে জখম করে অথবা গুলি করে নির্মমভাবে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। নিষ্ঠুরতার শিকার হয়ে মারা যায় ৯ জন ইতালীয়, ৭ জন জাপানি, ১ জন ভারতীয়, ১ জন বাংলাদেশি/আমেরিকান এবং ২ জন বাংলাদেশী নাগরিক। রাতভর এই নারকীয় হত্যাযজ্ঞের সাক্ষী  পুলিশ ও সেনাবাহিনীর প্রতিরোধ অভিযানে উদ্ধার হওয়া জীবিত ৩২ জন। যার মধ্যে প্রথমে পুলিশের অভিযানে উদ্ধার হয় ২ জন বিদেশীসহ ১৯ জন, এরপর সেনাবাহিনীর অভিযানে উদ্ধার হয় দেশী বিদেশী মোট ১৩ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *