ইরানের সামনে ইসরাইল এখন অনিরাপদ: দেবকাফাইল

শেয়ার / প্রিন্ট করুনঃ

ইহুদিবাদী ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ ওয়েবসাইট ‘দেবকাফাইল’-বলেছে, সম্প্রতি ইরাকের ভূখণ্ডে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি আইন আল-আসাদ এবং ইরবিলে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে যে হামলা চালিয়েছে, মার্কিন সামরিক বাহিনী তা ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ার পর এই আশঙ্কা জোরদার হয়েছে যে, ইসরাইল এখন আর নিরাপদ নয়। কারণ ইসরাইলের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাগুলো আমেরিকার মডেলের ওপরে ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে।

ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রগুলোর সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রাখা দেবকাফাইল গতকাল (শুক্রবার) এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এর দু দিন আগে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি অন্তত ১৩টি ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইরাকের দুটি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে হামলা চালায়। ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রের একটিও ভূপাতিত করতে পারে নি মার্কিন বাহিনী।

দেবকাফাইল পরিষ্কার করে বলেছে, কোরীয় যুদ্ধের পর মার্কিন সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে ইরানই প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালালো।

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা সম্পর্কে মন্তব্য করে দেবকাফাইলের এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই হামলা প্রমাণ করে ইরান কতটা নিখুঁত এবং ধারালো ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। ইরানের এই অর্জনকে বিরাট বড় সফলতা বলে মন্তব্য করেছে দেবকাফাইল। একজন বিশ্লেষকের বরাত দিয়ে দেবকাফাইল বলেছে, ইরানের পাল্টা হামলা এত বেশি নিখুঁত ছিল যে, তারা একটি একটি করে ভবনে হামলা চালাতে সক্ষম হয়েছে।

দেবকাফাইল ইরানের সফলতার বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বলেছে, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করতে না পারার কারণ হতে পারে- মার্কিন সেনাদের আগাম সতর্কীকরণ ব্যবস্থায় ত্রুটি ছিল অথবা ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রকে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভূপাতিত করতে পারে নি অথবা এর দুটোই।

দেবকাফাইল আরো বলেছে, ইরানের এই প্রতিশোধমূলক হামলা ইসরাইলের ওপর মারাত্মক রকমের প্রভাব ফেলেছে। এখন আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে ইসরাইল এখন অনেক বেশি সম্ভাব্য ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঝুঁকির মুখে পড়ল।

দেবকাফাইল বলছে, “যদি ইরানি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের মোকাবেলায় মার্কিন সামরিক বাহিনীর ব্যর্থতা থাকে তাহলে আমেরিকার ক্ষেপণাস্ত্রের মডেলের ওপর ভিত্তি করে ইসরাইলের যে আগাম সতর্কীকরণ ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে তার ভাগ্যও একইভাবে লিখিত হয়ে গেছে। এ অবস্থায় ইসরাইল সরকারের উচিত হবে- আমেরিকা ও ইরানের মধ্যকার অস্ত্র প্রতিযোগিতায় তেল আবিব জড়িত নয় বলে জনগণকে বানানো গল্প না শুনিয়ে বরং ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সামনে ইসরাইল নিরাপদ নয় সেটা প্রকাশ্যে স্বীকার করা।-পার্স টুডে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *