গত ১৯ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিঃ বেলা ১১.০০ টায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অপহৃত ছাত্রী সোভার উদ্ধার সংক্রান্ত বিষয়ে এক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ মাহাবুবর রহমান পিপিএম প্রেস ব্রিফিং এ উপস্থিত প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইন সাংবাদিকবৃন্দের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

গত ১৭ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিঃ সকাল অনুঃ ০৮.১০ টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় তাপসী রাবেয়া হলের মোসাঃ শাহী উম্মে আম্মানা সোভা (২১) বাংলা ৪র্থ বর্ষ (সম্মান) এর ছাত্রী পরীক্ষার উদ্দেশ্যে হল থেকে বের হলে তার প্রাক্তন স্বামী মোঃ সোহেল রানার সাথে বেগম খালেদা জিয়া হলের সামনে দেখা হয়। তাদের উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সোহেল রানা সোভাকে জোর করে মাইক্রোবাসে উঠায় এবং মাইক্রোবাসটি দ্রুত ক্যাম্পাস ত্যাগ করে। এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তাপসী রাবেয়া হলের শিক্ষার্থী মোসাঃ নিলুফা এবং মোসাঃ মাহাবুবা হুমাইরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানায় যে, সোভাকে জোরপূর্বক অপহরণ করা হয়েছে। ঘটনার অব্যবহিত পরপরই আরএমপি রাজশাহীর ঊর্র্ধ্বতন পুলিশ কর্তৃপক্ষসহ মতিহার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। পুলিশ কমিশনার রাজশাহী এর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে মতিহার থানা পুলিশ সোভাকে উদ্ধারে জোর তৎপরতা শুরু করে। এ সংক্রান্তে ভিকটিমের পিতা মোঃ আমজাদ হোসেন বাদী হয়ে ভিকটিমের প্রাক্তন স্বামী সোহেলকে প্রধান আসামী করে আরো ৫ জনের নামে মহানগরীর মতিহার থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

গত ১৮ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিঃ নওগাঁ জেলার পত্নীতলা থানা পুলিশের সহায়তায় সোহেল রানার পিতা মোঃ জয়নাল আবেদীনকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, অভিযুক্ত মোঃ সোহেল রানা ভিকটিমসহ ঢাকার দিকে গিয়েছে। তৎক্ষণাৎ বিষয়টি আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সসহ পুলিশের সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলোকে সহায়তার জন্য অনুরোধ করলে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স এর ইন্টেলিজেন্স উইংস এর সহায়তায় মতিহার থানা পুলিশ মোহাম্মদপুর থানার শেখেরটেক রায়ের বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে রায়ের বাজার কাজী অফিস হতে দুপুর ০২.১৫ টায় আসামী মোঃ সোহেল রানাকে আটক করে এবং ভিকটিম সোভাকে উদ্ধার করে। গত ১৯ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিঃ রাত্রী ০১.০০ টায় ভিকটিমসহ মতিহার থানা পুলিশ থানায় নিয়ে আসে এবং তৎক্ষণাৎ ভিকটিম সোভাকে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে প্রেরণ করা হয়। পরবর্তীতে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এছাড়া অপহরণে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি উদ্ধার করা হয়েছে এবং মাইক্রোবাসটির ড্রাইভার মোঃ জাহিদুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে।