জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজার আত্মসমর্পণ

যশোর শহরের ঘোপ নওয়াপাড়ায় একটি জঙ্গি আস্তানায় শ্বাসরুদ্ধকর ১৫ ঘণ্টার অভিযান ‘অপারেশন মেলটেড আইস’ শেষ হয়েছে। রোববার রাত ২টায় আস্তানাটি ঘিরে রাখার পর সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে অভিযান শুরু হয়। শেষ হয় বিকাল ৫টায়। অভিযানকালে সন্দেহভাজন জঙ্গি হাফিজুর রহমান সাগর ওরফে মশিউর রহমানের স্ত্রী খোদেজা আক্তার খাদিজা তিন শিশু সন্তান নিয়ে আত্মসমর্পণ করেন। খাদিজা নব্য জেএমবির শীর্ষ নেতা নিহত নুরুল ইসলাম মারজানের বোন। এর আগে খাদিজার শর্ত অনুযায়ী তার বাবা-মাকে পাবনা থেকে ওই বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। খাদিজা আত্মসমর্পণে পর আস্তানা থেকে ৩টি সুইসাইড ভেস্ট উদ্ধার করে তা নিষ্ক্রিয় করা হয়। এদিকে অভিযানের দু’দিন আগে পালিয়ে যায় খাদিজার স্বামী জঙ্গি হাফিজুর রহমান সাগর ওরফে মশিউর রহমান। তিনি নবগঠিত জেএমবির খুলনা অঞ্চলের নেতা।
অভিযান শেষে বিকাল সোয়া ৫টায় ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের বাড়ির (যে বাড়িতে জঙ্গি আস্তানা গড়ে তোলা হয়েছিল) সামনে ব্রিফিং করেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ইকরামুল হাবিব। তিনি বলেন, ‘গোয়েন্দা তথ্য পাওয়ার পর পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা রোববার রাত ২টার দিকে বাড়িটি ঘিরে ফেলে। আজ (সোমবার) বেলা সোয়া ১১ টায় সোয়াট, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট, বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলসহ স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযানে অংশ নেয়। অভিযানের সময় সন্দেহভাজন শীর্ষ জঙ্গি হাফিজুর রহমান সাগর ওরফে মশিউর রহমানের স্ত্রী খোদেজা আক্তার খাদিজা তিন শিশু সন্তান নিয়ে আত্মসমর্পণ করেন। তার সন্তানদের নাম- সুমাইয়া (৫) ও সুরাইয়া (৩) এবং রাজু (২)। এরপর ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৩টি সুইসাইডাল ভেস্ট উদ্ধার করা হয়। পাশাপাশি কয়েকটি নকশাও পাওয়া গেছে। এগুলো কোনো প্রতিষ্ঠানের নকশা কিনা বা এই নকশা অনুযায়ী হামলার পরিকল্পনা ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘ইতিমধ্যেই খাদিজা ও সন্তাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তাদের ব্যাপারে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

শেয়ার / প্রিন্ট করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *