সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ রুখতে কৌশল নির্ধারণ করবে আইপিইউ

সন্ত্রাসবাদ বা জঙ্গিবাদকে কোনোভাবেই সহায়তা করবে না ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) ভুক্ত দেশগুলো। একই সঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ রুখতে একটি কৌশল নির্ধারণেও আলোচনা চলছে। সোমবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পাঁচ দিনব্যাপী ১৩৬তম আইপিইউ সম্মেলনের তৃতীয় দিনে স্ট্যান্ডিং কমিটি অন পিস অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটি’ শীর্ষক আলোচনায় এ বিষয়ে মত দেন অধিকাংশ দেশের সদস্যরা।
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) এক সংবাদ সম্মেলনে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) সেক্রেটারি জেনারেল মার্টিন চুংগং বলেন, বিশ্ব শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য সন্ত্রাসবাদ সবচেয়ে বড় হুমকি। কোন দেশই এই হুমকির বাইরে নয়।এজন্য একটি বৈশ্বিক সমাধান প্রয়োজন।তিনি বলেন, বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় আইপিইউ’র এই অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের সংসদের সক্ষমতা বাড়ানোর কৌশল গ্রহণ করা হবে এবং সম্মেলন শেষে এ বিষয়ে একটি ঘোষণা আসবে। আজ নির্বাহী কমিটিতে এসব বিষয় অবহিত করা হবে। তিনি বলেন, সহিংস সন্ত্রাসবাদ হতাশা, সামাজিক অসমতা, অবিচার, মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং সুযোগের অভাব এর জন্ম দেয়। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলার কৌশলে আমরা এই বিষয়গুলো অন্তর্ভূক্ত করবো। আইপিইউ সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, যেই কৌশলটা প্রস্তাব করা হবে, সেখানে অনেকগুলো কার্যক্রম অন্তর্ভূক্ত করা হবে, যা সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টির কারণগুলোকে রুখতে গে¬াবাল পার্লামেন্টারি কমিউনিটিকে সাহায্য করবে। তিনি বলেন, সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিকসহ সকল ক্ষেত্রে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বৈষম্য দূর করতে এবং মানবিক মর্যাদা পুন:প্রতিষ্ঠায় পার্লামেন্ট কিভাবে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারে, খসড়া প্রস্তাবেসে বিষয়গুলো অন্তর্ভূক্ত করা হবে।মার্টিন বলেন, কিছু ঘটে যাওয়ার আগেই সন্ত্রাসবাদ তৈরীর কারণগুলোকে চিহ্নিত করে নির্মূল করে তা নির্মূলে পদক্ষেপ নিতে হবে।
আইপিইউ সেক্রেটারি জেনারেল মার্টিন চুং গং সংবাদ সম্মেলনে জানান, সহিংস সন্ত্রাসবাদ জন্ম নেয় হতাশা, সামাজিক অসমতা, অবিচার, মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং সুযোগের অভাব থেকে।সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলার কৌশলে আমরা এই বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করবো।তিনি আরও বলেন, যেই কৌশলটা প্রস্তাব করা হবে, সেখানে অনেকগুলো কার্যক্রম অন্তর্ভুক্ত হবে, যা সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টির কারণগুলোকে রুখতে গে¬াবাল পার্লামেন্টারি কমিউনিটিকে সাহায্য করবে। এরআগে সম্মেলনের তৃতীয় দিনে ‘স্ট্যান্ডিং কমিটি অন পিস অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটি’ শীর্ষকআলোচনায় অংশগ্রহণকারী অধিকাংশ দেশের সদস্যরা এ বিষয়ে মতামত দেন। স্ট্যান্ডিং কমিটি অন পিস অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটির আলোচনায় বাংলাদেশ ডেলিগেশন টিমের প্রধান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ডা. দীপু মনি। শনিবার ঢাকায় ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) ১৩৬তম সম্মেলন শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তজার্তিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৫ এপ্রিল পর্যন্ত এর কার্যক্রম চলবে।
স্ট্যান্ডিং কমিটি অন পিস অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটির আলোচনায় বাংলাদেশ ডেলিগেশন টিমের প্রধান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ডা. দীপু মনি বলেন, সন্ত্রাস বা জঙ্গিবাদ কার্যক্রমে কোনো দেশই যেন আর্থিক বা জনবল কোনো কিছুতেই সহায়তা না পায় সেগুলো বন্ধ করার বিষয়ে নিজ নিজ দেশের সংসদের কী ভূমিকা হতে পারে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। সুত্র:দৈনিক করতোয়া

শেয়ার / প্রিন্ট করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *